গ্রাহকের ১৭ কোটি টাকা আত্মসাৎ,গ্রেপ্তার তিন এনজিওকর্মী

প্রকাশিত: ৬:৪৭ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২, ২০২০

গ্রাহকের ১৭ কোটি টাকা আত্মসাৎ,গ্রেপ্তার তিন এনজিওকর্মী

লন্ডন বাংলা ডেস্কঃঃ

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় গ্রাহকদের ১৭ কোটি টাকা আত্মসাতের ঘটনায় বেসরকারি ‘সানলাইফ উন্নয়ন সংস্থা’র (এনজিও) তিনকর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার রাতে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে মঠবাড়িয়া থানা পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন-উপজেলার তুষখালী গ্রামের রুস্তুম আলী বেপারীর স্ত্রী রোজী পারভীন পাখি (৪০), তার ছেলে আজিমুজ্জামান আজিম (২২) ও একই এলাকার মৃত বাবুল বেপারীর স্ত্রী নাজমা বেগম।

গ্রেপ্তারকৃতরা এনজিওর বিভিন্ন পদে কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত রয়েছেন বলে জানিয়েছেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মঠবাড়িয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মাইনুল ইসলাম।

মঠবাড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আ জ মো. মাসুদুজ্জামান বলেন, ‘মঠবাড়িয়ায় গ্রাহকদের ১৭ কোটি টাকা নিয়ে উধাও হয়ে যায় সানলাইফ উন্নয়ন সংস্থা নামে একটি এজিও সংস্থা। এ ঘটনায় সোমবার (৩১ আগস্ট) রাতে ভুক্তভোগী উপজেলার তুষখালী গ্রামের নাসরিন আক্তার বাদী হয়ে সংস্থাটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সিদ্দিকুর রহমানসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে মঠবাড়িয়া থানায় ৫ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করেন।’

মামলা সূত্রে জানা যায়, বরগুনা সদর উপজেলার ফুলঝুড়ি ইউনিয়নের গুদিঘাটা এলাকার বাসিন্দা সিদ্দিকুর রহমান মঠবাড়িয়ায় ‘সানলাইফ উন্নয়ন সংস্থা’ নামে একটি এনজিওর অফিস নেন। এরপর ওই অফিসের মাধ্যমে ডিপিএস, সঞ্চয়, ছয় ও পাঁচ বছরে দ্বিগুণ মুনফা দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে গ্রাহকদের কাছ থেকে কয়েক কোটি টাকা নিয়ে উধাও হয়।

এ ঘটনার প্রতিবাদে ও জামানতের টাকা ফেরত পাওয়ার জন্য ভুক্তভোগী সহস্রাধিক গ্রাহক গত ২৪ আগস্ট উপজেলার তুষখালী-জানখালী সড়কে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন। মানববন্ধনে অংশ নেওয়া গ্রাহকরা দাবি করেন তাদের কাছ থেকে ১৭ কোটি টাকা নিয়ে এনজিও পরিচালক সিদ্দিকুর রহমান পালিয়ে গেছেন।

মঠবাড়িয়া থানার ওসি জানান, এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় গতকাল মঙ্গলবার রাতে অভিযান চালিয়ে তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। প্রধান আসামি সিদ্দিকুর রহমানকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

Spread the love

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

আর্কাইভ

May 2024
M T W T F S S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031