বালাগঞ্জে মাদ্রাসার সুপার নিয়োগে অনিয়ম:এলাকায় উত্তেজনা

প্রকাশিত: ৪:০৪ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৪, ২০২০

বালাগঞ্জে মাদ্রাসার সুপার নিয়োগে অনিয়ম:এলাকায় উত্তেজনা
Spread the love

Views

তারেক আহমদ/বালাগঞ্জঃঃ

সিলেটের বালাগঞ্জের মুসলিমাবাদ ইসলামিয়া হাফিজিয়া আলিম মাদ্রাসায় সুপার নিয়োগ পরীক্ষায় ব্যাপক অনিয়ম, দূর্নীতির অভিযোগ উঠেছে।  বিষয়টি নিয়ে গত দুইদিন ধরে এলাকায় উত্তজনা বিরাজ করছে। শনিবার সকালে মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা এই নিয়োগ প্রক্রিয়ার বিপক্ষে বিক্ষোভ মিছিল করে মাদ্রাসার সহঃসুপার মাও. আব্দুস সোবহান ও জুনিয়র শিক্ষক সাইফুল ইসলামের অপসারন দাবী এবং নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল করে সচ্ছভাবে পুন:নিয়োগের দাবী জানায়। এসময়, পরিস্থিতি উত্তপ্ত হওয়ার খবর পেয়ে বালাগঞ্জ থানা পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে  বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীদের শান্ত করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। গত ১৩ মার্চ শুক্রবার মাদ্রাসাটির সুপার পদে নিয়োগের জন্য লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এতে ৪ জন প্রার্থী  পরীক্ষায় অংশগ্রহন করেন। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি মির্জা আবু নাসের এম রাহেল জানান, শুক্রবার অনুষ্টিত মাদ্রাসার সুপার নিয়োগ নিয়ে মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের খবর পেয়ে সেখানে উপস্থিত হয়ে তাদের দাবী দাওয়া শুনা হবে বলে আশ্বস্ত করে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করি। 

 

 

পরিক্ষার্থী মাও. সৈয়দ বদরুল আলম বলেন, শুক্রবার  নিয়োগ পরিক্ষা অনুষ্টিত হয়েছে। শিক্ষক সাইফুল ইসলাম এবং সহঃসুপার আমাকে নিয়োগ পাইয়ে দেয়ার জন্য তিন লক্ষ টাকা দাবী করেন। আমি টাকা দিতে অসম্মতি জানিয়ে পরিক্ষা দিয়েছি। আমার পরিক্ষা ভালো হলেও আমাকে নিয়োগ বোর্ড থেকে কোন কিছু না জানিয়ে উনারা তড়িঘড়ি করে গাড়িতে উঠে চলে যান। আমি জানিনা আমাকে  নিয়োগদানের সুপারিশ হবে কিনা। অপর প্রার্থী মাও. আব্দুল হান্নান জানান, পরিক্ষায় তিনি প্রথম হয়েছেন। তবুও তাকে নিয়োগের বিষয়ে কোন ফলাফল জানানো হয়নি, পরবর্তিতে মাদ্রাসার বর্তমান সহঃসুপারকে ফোন দিলে তিনি জানান আমি দ্বিতীয় হয়েছি। অথচ নিয়োগ কমিটি ফলাফলই ঘোষনা করেনি। নিয়োগ প্রক্রিয়াটি অসচ্ছ হয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি। অপর প্রার্থী মাও. লুৎফুর রহমান সিরাজী বলেন, পরিক্ষা দিয়েছি ফলাফলের অপেক্ষায় আছি। নিয়োগের সচ্ছতা নিয়ে আমি সন্দিহান।

 

 

নিয়োগের জন্য সুপারিশপ্রাপ্ত মাওলানা মো. আব্দুল মুমিত জানান, তিনি নিয়োগের সুপারিশপ্রাপ্ত হয়েছেন। নিয়মতান্ত্রিকভাবেই পরিক্ষা হয়েছে। নিয়োগ প্রক্রিয়ায় আর্থিক লেনদেনের কথা অস্বীকার করেন তিনি। এব্যাপারে বালাগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বলেন,ওই মাদ্রাসার নিয়োগ পরিক্ষাটি শতভাগ সচ্ছ হয়েছে। এখানে চুল পরিমান অনিয়ম হয়নি। নিয়োগ বোর্ডের নিয়মানুসারে প্রার্থীদের মধ্যে যে সব চেয়ে বেশি নম্বর পেয়েছে তাকেই সুপারিশ করা হয়েছে। এখন মাদ্রাসা পরিচালানা কমিটি এ বিষয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহন করবেন।

এলবিএন/অ/০৪/১৪

 


Spread the love

Follow us

আর্কাইভ

January 2022
M T W T F S S
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
31