ভারতের সাথে বাংলাদেশের ট্রেন চলাচল বন্ধ

প্রকাশিত: ৯:২৮ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৪, ২০২০

ভারতের সাথে বাংলাদেশের ট্রেন চলাচল বন্ধ
Spread the love

১০৬ Views

লন্ডন বাংলা ডেস্কঃঃ

ভারতীয় ভিসায় বাংলাদেশিদের জন্য এক মাসের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারির পর এবার আগামীকাল রোববার থেকে দুই দেশের মধ্যে মৈত্রী বন্ধন এক্সপ্রেস রেল ও বাস সার্ভিস বন্ধ করে দিয়েছে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ। আজ শনিবার বিকেলে বাংলাদেশ রেলওয়ে ও বাসের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

 

 

শ্যামলী এনআর পরিবহনের সহকারী ম্যানেজার আব্দুল মজিদ জানান, আজ শনিবার দুপুরে ভারত থেকে যাত্রী নিয়ে ফেরার সময় করোনাভাইরাস সংক্রমণের কথা বলে ভারতীয় ইমিগ্রেশন রোববার থেকে দুই দেশের মধ্যে মৈত্রী বাসের চলাচল আগামী ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ করেছে। নিষেধ অমান্য করে কোনোভাবে ভারতে প্রবেশ করলে পাসপোর্ট বাজেয়াপ্ত করা হবেও জানিয়েছেন ভারতীয় ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ।

 

 

বেনাপোল রেলস্টেশন মাস্টার সাইদুর রহমান জানান, বন্ধন এক্সপ্রেস রোববার থেকে খুলনা-কলকাতা রুটে এক মাসের জন্য বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন ভারতীয় রেল কর্তৃপক্ষ। তবে এ পথে রেল ওয়াগানে পণ্য পরিবহন আপাতত স্বাভাবিক থাকবে।

 

 

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কলকাতা-বেনাপোল- খুলনা রেল রুটে সপ্তাহে দুই দিন বন্ধন এক্সপ্রেস এবং সড়ক পথে কলকাতা-বেনাপোল-ঢাকা রুটে শ্যামলী এসপি, কলকাতা -বেনাপোল-খুলনা রুটে গ্রীনলাইনের সোহার্দ্য বাস এবং কলকাতা-বেনাপোল-আগরতলা রুটে শ্যামলী এনআর বাস সপ্তাহে ৬ দিন যাত্রী নিয়ে চলাচল করে।

 

 

বাংলাদেশি সাধারণ যাত্রীরা জানান, বাংলাদেশের তিনজন ছাড়া আর কেউ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত না হলেও ভারত সরকার তাদের দেশে ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা এবং দুই দেশের মধ্যে চলাচলরত ট্রেন, বাস চলাচল বন্ধ করে দেওয়ায় বিশেষ করে চিকিৎসাসেবীরা সমস্যায় পড়বেন।

 

 

প্রসঙ্গত, বেনাপোল বন্দর দিয়ে চিকিৎসা, ব্যবসা ও ভ্রমণে প্রতিদিন দুই দেশের মধ্যে প্রায় ৮ থেকে ১০ হাজার যাত্রী যাতায়াত করে থাকে। এসব যাত্রীদের কাছ থেকে বছরে প্রায় ৭৫ কোটি টাকা ভ্রমণ কর বাবদ সরকারের আয় হয়। করোনাভাইরাস সংক্রমণ এড়াতে গত ১৩ মার্চ বিকেল ৫টা থেকে ভারতীয় ভিসায় ভ্রমণ এক মাসের জন্য নিষেধাজ্ঞা জারি করে পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ। আর রোববার থেকে বন্ধ করেছে দুই দেশের মধ্যে মৈত্রী বাস ও ট্রেনে যাত্রী পরিবহন।


Spread the love

Follow us

আর্কাইভ

July 2022
M T W T F S S
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031